হোমিওপ্যাথী, এ্যালোপ্যাথী, না আয়ুরবেদী

Category: Health Written by Md. Rafiqul Islam Hits: 13843

৬০ দশকের গোদাগাড়ী একটা গন্ডগ্রামগোদাগাড়ী থানা চেরিটেবল ডিসপেনসারি এ্যালোপ্যাথী চিকিৎসার একমাত্র ভরসাশামসুল হুদা বড় ডাক্তার এল,এম,এফ (লোয়ার মেডিক্যাল ফ্যাকালটি) পাশমোস্তফার একটা ছোট্ট ঔষধের দোকান ছিল ডিসপেনসারির সামনে রাস্তার উল্টো দিকেআরশাদ ভাই ছোট ডাক্তার হিসাবে পরিচিততাঁর পরিচিতি বা উপাধিতে সময় ভেদে ভিন্ন ভিন্ন ছিলতিনি ডাক্তার, আবার কখনো কম্পাউন্ডার অথবা কখনো এ্যাসিস্টেন্টআসলে আরশাদ ভাই ডিসপেনসারির পিওনকালের পরিক্রমায় দেখতে দেখতে মিকচার বানানো, ইনজেকশন দেয়া, জ্বর মাপা, সব কিছু শিখে গেছেনকম্পাউন্ডার না থাকায় তিনি কম্পাউন্ডারআর ডাক্তার সাহেব না থাকলেই তিনিই আমাদের একমাত্র ভরসাআরশাদ ভাই ছাড়াও জনা ছয়েক হোমিওপ্যাথ গোদাগাড়ীতে চিকিৎসা সেবা দিতেনতার মধ্যে গোদাগাড়ী স্কুলের শিক্ষক জনাব শাহাজাহান আলী মাস্টারের বেশ হাত জস ছিলসাধারণ সর্দি কাশি জ্বর হলে মানুষজন আগে হোমিওপ্যাথের কাছেই দৌড় দিতো

ডিসপেনসারি, হোমিওপ্যাথের পাশাপাশি একটা আয়ুরবেদী ঔষধের দোকানও ছিল গোদাগাড়ীতেঅসুখ বিসুখে শরীর দূর্বল হলে মানুষজন ছুটতো নজরুল ভাইদের দোকানে সারিবাদি সালসা কিনতেএছাড়াও বদহজম হলেও হজমি নামের একটা তরল ঔষধের বেশ কদর ছিলঅসুস্থ্য দূর্বল মানুষ ছাড়াও রাজ্জাক মেম্বারদের সারিবাদি সালসা কিনতে দেখতামসারিবাদি সালসা দিয়ে কেউ কেউ নেশাও করতেনহোমিওপ্যাথি ঔষধের দাম ছিল ৪ আনা মানে ২৫ পয়সানা দিলেও কোন কিছু বলতো নাগোল গোল চিনি দানা, তার মধ্যে স্পিরিট এর ছোয়া দিয়ে ঔষধ খেতে খুব মজামাঝে মাঝে কোন কিছু না হলেও সর্দি-কাশির নাম করে ২-৪ পুরিয়া নিয়ে আসতামআরশাদ ভাই এর তিতা মিকচার বিস্বাদতাই বাধ্য না হলে তার কাছে আমরা কেউ যেতাম না

আরশাদ ভাইকে বলা যাবে না, শাহজাহান মাষ্টারের হোমিওপ্যাথি খেয়েছিশাহজাহান মাস্টার যদি শুনেছেন এ্যালোপ্যাথি খেয়েছি তা হলে তেঁড়ে আসতেনবলতেন, ঐ সব ছাইপাস যদি খাবি তা হলে আমার কাছে এসেছিস কেন? আয়ুরবেদ সাজ্জাত ডাক্তারের কাছে পেলে বিজ্ঞেরমত বলতেন;

:শোনেন ! চিকিৎসা হলো আয়ুরবেদগাছ গাছড়া দিয়ে তৈরী প্রাকৃতিক ঔষধকোন প্রতিক্রিয়া নাই" রোগী হিসাবে আমাদের একটাই কাজ ছিল, চুপচাপ বসে থাকাকারো বিরুদ্ধে কিছূ না বলা

এ্যালোপ্যাথি, হোমিওপ্যাথি, আয়ুরবেদ সবাই চিকিৎসা করছেনকেউ কাউকে দেখতে পারেন নাএ্যালোপ্যাথ বলছেন; হোমিওপ্যাথি কোন চিকিৎসা না ; হোমিওপ্যাথ বলছেন এ্যালোপ্যাথি কোন রোগ সারাতে পারেনা, শুধু কিছু সময়ের জন্য রোগের মাত্রাকে অবদমন করে রাখেআয়ুরবেদ বলছেন হোমিওপ্যাথি,এ্যালোপ্যাথি, কোনটাই চিকিৎসা নয়রোগ সারাতে হলে দরকার ভেজস গুনাবলীর ঔষধশরীর তা ঠিক মত গ্রহণ করবে; কোন পার্শপ্রতিক্রিয়া হবে না এবং প্রাকৃতিক ভাবে অসুখ সেরে যাবে

চিকিৎসা পদ্ধতি যাই হোক না কেন তিন জনই চিকিৎসকমানুষের অসুখ সারানোই তাঁদের কাজতার পরও তাঁদের মধ্যে এত বিভেদ কেন? কেন তারা একে অপরকে দেখতে পারেননা? এ সব প্রশ্ন ছোট বেলাতেই মাথায় ডুকে পড়েছিলোআজও বাহির করতে পারিনি বলেই মাঝে মাঝে এসব নিয়ে ভাবি

এস এস সি পরীক্ষা চলার সময় গোদাগাড়ী স্কুলের বিজ্ঞান শিক্ষক ফায়েক স্যার রেলওয়ে স্কুলে মাস্টারী নিয়ে চলে গেলেনস্কুলে বিজ্ঞাণ শাখা চালু রাখা অসম্ভব হয়ে পড়ছিলহেড মাস্টার স্যার আমাকে স্কুলে যোগদিতে বললেনচাকুরীটাও আমার দরকার ছিলসময় কাটানোর সাথে কটা বাড়তি টাকা আসবে ভেবে স্কুলে যোগ দিলাম

স্কুল লাইব্রেরীটা বেশ বড়আগে কোন দিন ডুকতে পারিনিবই এর তাক গুলো ঘুরে ঘুরে কখনো দেখা হয়নিহঠাৎ একটা মোটা বই চোখে পড়লো- হ্যানিম্যানের হোমিওপ্যাথিমনে হয় শাহজাহান মাস্টার সাহেব রিকিউজিশন দিয়ে কিনিয়েছেনতাঁকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বইটা ইসু করে বাসায় নিয়ে গেলাম

হ্যানিম্যান ছিল একজন এ্যালোপ্যাথ ডাক্তারতাঁর ডাক্তারী এ্যালোপ্যাথি দিয়েই শুরুএসিডিটি হলে এন্টি এসিড হিসাবে এন্টাসিড দেয়া হয়যা কি না ক্ষার অর্থাৎ ক্যালশিয়াম বা ম্যাগনেশিয়াম হাইড্রো অক্সাইডএসিডিটি হবে তার পর এ্যান্টাসিড খেলে রোগী কিছুটা আরাম পাবেকিন্তু এসিডিটি হবে কেন ? এটা বন্ধ করা যায় কি ? এ ভাবনা থেকেই হ্যানিম্যানের হোমিওপ্যাথিতিনি মোটা মুটি নিশ্চিত হলেন, যে রোগ যে কারনে হয় তার অতিস্বল্প মাত্রার ডোজ শরীরে আগেই ডুকানো হলে এ রোগ সহজে হবে নাএই তত্বকে কাজে লাগিয়ে তিনি হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার গোড়াপত্তন করেন

রোগ প্রতিরোধ করাই হলো হোমিওপ্যাথির কাজরোগ হয়ে গেছে রোগী কষ্ট পাবেতার কষ্ট উপশম করতে হবেএক্ষেত্রে এ্যালোপ্যাথির বিকল্প নাইরোগের প্রাদুর্ভাব এমন বেড়ে গেছে যে, অংগের ক্ষতি হয়ে গেছেতা কেটে ফেলতে হবেএছাড়া কোন উপায় নাইএক্ষেত্রে প্রয়োজন সার্জারীএ্যালোপ্যাথি আর সার্জারী একে অপরের পরিপূরক হিসাবে আগেই মেনে নিয়েছেএ্যালোপ্যাথ বসন্ত, কলেরার টিকা দিচ্ছেনএটা হোমিওপ্যাথি ছাড়া অন্য কিছু নয়কিন্তু এ্যালোপ্যাথ তা স্বীকার করছেন না

প্রতিরোধ, প্রশমন এবং ক্ষয়পূরণ চিকিৎসা শাস্ত্রের তিনটি দিকরোগ হওয়ার আগেই রোগ প্রতিরোধ করতে হবেরোগ হওয়ার আগেই কিছু লক্ষণ দেখে টের পাওয়া যায় কি রোগ হতে পারেধরুন এসিডিটি মানুষের একটি অতি সাধারন রোগরোগটা শুরু হয় বদ হজম ঢেকুর উঠা দিয়েএটা এসিডিটি শুরুর লক্ষনএঅবস্থায় প্রশমনের কথা চিন্তা না করে প্রতিরোধ করাই শ্রেয়এক্ষেত্রে হোমিওপ্যাথের কাছে গেলে তিনি অল্প মাত্রার হাইড্রোক্লোরিক এসিড দিবেনকাজ হতে পারে

জলবসন্ত, কলেরার টিকা তৈরী হলেও এসিডিটির কোন টিকা এ্যালোপ্যাথের কাছে নাইকিন্তু হোমিওপ্যাথি এর ঔষধ দিতে পারেএন্টাসিড সব ধরনের এসিডের জন্য প্রশমক হিসেবে কাজ করেহোমিওপ্যাথকে প্রতিরোধক হিসাবে কাজ করার জন্য ঔষধ দিতে হলে জানতে হবে কোন এসিডের জন্য এ লক্ষন গুলো দেখা দিয়েছেসেই এসিডের অল্পমাত্রার ডোজ দিয়ে চিকিৎসা শুরু করতে হবেএ দিক থেকে হোমিওপ্যাথের জন্য ঔষধ নির্নয় জটিল বিষয়ঔষধ ঠিক করলেই চলবে নাঔষধের মাত্রা ও পরিমান তাঁকে সঠিক ভাবে নির্ধারন করতে হবে

পরিপাক তন্ত্রের বিভিন্ন জায়গা থেকে বিভিন্ন এসিড নিঃস্ম^রন হয়যেমন মুখ থেকে হাইড্রোক্লোরিক এসিড, অগ্নাশয় হতে পেপটিক এসিড ইত্যাদিযদি মুখের এসিডের কারনে এ্যাসিডিটি হয়, আর হোমিওপ্যাথ সালফিউরিক এ্যাসিড দিয়ে চিকিৎসা শুরু করেন তা হলে, লাভ তো হবেই না উল্টো এ্যাসিডিটি আরো বাড়বেহোমিওপ্যাথ শাহজাহান মাষ্টার বিজ্ঞের মত বলতেন,‍ "হোমিওপ্যাথকে ঔষধ ঠিক করার আগেই জানতে হবে লক্ষন গুলো কি কি? লক্ষণ ঠিকমত না জেনে ঔষধ দিলে সর্বনাশ হতে পারে

১৯৮৮ সালে ঈদের ছুটিতে দেশের বাড়ী যাচ্ছিলামনাটোরের বনপাড়ায় নাইট কোচ ও আমের ট্রাকের সংগে মুখোমুখি লাগলোসামনের অনেক যাত্রী মারা গেলএ যাত্রা রক্ষা পেলামআমার সিট নম্বর ছিল শেষ সারিতে ৪৮চোয়ালের নীচের হাড়টা ভেংগে গেলহাতের হাড়ে চির ধরলেও অল্প কয়েক দিনের মধ্যে সেরে গেলেও কদিন পরে চোয়াল সমস্যা দেখা দিলোচোয়ালের হাড় রাখা যাবে না কেটে ফেলতে হবে১৯৯২ সালে চোয়ালের ৪ ভাগের এক ভাগ কেটে ফেললামভালোই ছিলাম১৯৯৭ সালে সমস্যাটা আবারও দেখা দিলএবার অর্ধেকটা কেটে ফেলতে হলোকিন্তু এর পরও রেহাই পেলাম না২০০২ সালে জানানো হলো যে, চোয়ালের হাড় আর রাখা যাবে নাচোয়ালে হাড় না থাকলে খেতে পারবো নাকথা বলা যাবে নাখাওয়া কথাবলা বন্ধকি করবো বুঝতে পারছিলাম নাএভাবে বেঁচে থাকারও কোন মানে হয় নাঅনেকে বললো, ‘সার্জারী এলোপ্যাথিতো অনেক হলো এবার একটু হোমিওপ্যাথি দিয়ে চেষ্টা করো"

এমন অবস্থায় এস পড়েছি যে, যে যা বলে তাই বিশ্বাস করিহোমিওপ্যাথির কাছে গেলামএ্যালোপ্যাথ ডাক্তারদের গালিগালাজ করে ছোট একটা বোতলে ঔষধ দিলেনবললেন, প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ৩ ফোটা করে খাবেনএক মাস চলবেএক মাস পর আবার দেখা করবেন’’ এক মাস পার হলো কোন উন্নতি হলো নাপাড়ার এক বড় ভাই রাজ্জাক, তিনি আজ বেঁচে নেই বললেন, “এত বড় একটা শরীরে ৩ ফোটা ঔষধ কি করবেআরে মিয়া আয়ুরবেদের কাছে যাওকত খারাপ রোগীকে ভালো হয়ে যেতে দেখলাম।"

দৌড় দিলাম আয়ুরবেদের কাছেএকটা বিশাল বোতলে নানা রং ও বর্ণের ঔষধ তৈরী করে দিলেনপ্রতিবার খাওয়ার পর ছোট কাপের এক কাপ করে খেতে হবেবিরামহীন ভাবে খেয়ে গেলামকোন উন্নতি তো হলোই নাআমার অবস্থা আরও খারাপের দিকেপুরো চোয়াল কেটে ফেলতে হবেবাংলাদেশে এটা সম্ভব নয়জার্মানী, ইউকে, আমেরিকায় চোয়াল ব্যাংক আছেসেখান হতে প্রতিস্থাপন করা যায়খরচ পড়বে প্রায় এক কোটি টাকাপায়ের চিকন হাড় মাংস ফিবুলা দিয়েও এটা প্রতিস্থাপন করা হয়খরচ প্রায় ৫ ভাগের এক ভাগভারতে আমেরিকান আর ইউরোপের ডাক্তারদের একটা দল বছরে একবার এসে এই অপারেশন করে থাকেনখোঁজ নিয়ে জানলাম তারা ২০০২ সালের আগষ্ট মাসে আসবেনতাঁদের সংগে যোগাযোগ হলোতাঁরা ১ম বার চোয়াল কেটে ফেললেনফিবুলাকে কেটে একটা ফ্রেমে করে চোয়াল তৈরী করে মুখের সংগে সেট করে রাখলেন৬ মাস পর অন্য একদল ডাক্তার ফ্রেম সরিয়ে ছিদ্র করে দাঁত লাগানোর জন্য ব্যবস্থা করলেনএর পর শেষ বারে দাঁত লাগানো হলোকাছে থেকে বোঝা গেলেও এখন অনেকটাই স্বাভাবিকডাক্তার বললেন, “অনেক ধকল গেছেসামাল দিতে হলে আপনাকে অনেক বিষয় মেনে চলতে হবে" আমি মৌন ভাবে সম্মতি প্রদান করলাম

ডাক্তার বললেন, “আমরা আপনাকে ৩ ধরনের ঔষধ দিবোএকটা প্রতিরোধক যাতে হাড়ে আর কোন এ ধরনের রোগ না হয়আর একটা যাতে আপনি ব্যাথায় কষ্ট কম পানঅন্য ঔষধ গুলো আপনাকে তাড়াতাড়ি সেরে উঠতে সাহায্য করবেকোনটাই কোনটার চেয়ে কম মুল্যবান নয়ঠিক মত সব গুলোই আপনাকে খেতে হবে এবং নিয়মিত।"

আমি ভাবছি একি কান্ড, এক সাথে হোমিওপ্যাথি, এ্যালোপ্যাথি আর আয়ুরবেদীতা হলে এ গুলোর মধ্যে কোন দ্বন্দ্ব নেইদ্বন্দ্ব তাহলে শুধু আমাদের মানুষের মধ্যেস্বার্থের দ্বন্দ্ব